সংক্ষিপ্ত বিবরণ

জাতীয় নাট্যশালার মহড়াকক্ষ প্রধানত নাট্যচর্চায় যে সকল সংগঠন দীর্ঘদিন অবদান রেখে আসছে, তাঁদের মঞ্চ নাটকের মহড়ার জন্য ব্যবহৃত হবে।

১. ৭ম ও ৮ম তলার নির্ধারিত ৪টি মহড়া কক্ষ
২. ৫ আসন বিশিষ্ট রূপসজ্জা কক্ষ।
৩. দর্শক লাউঞ্জ।
৪. টিকেট ঘর।
৫. শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা।
৬. কার্গো ও প্যাসেঞ্জার লিফট।
৭. আধুনিক শব্দ ও আলোক ব্যবস্থা।
৮. অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা।

পর্যবেক্ষন

পরিচালনা

অবস্থান

add a google map to your website

১. উদ্দেশ্য :

১.১. নিম্নোক্ত উদ্দেশ্য অর্জনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি জাতীয় নাট্যশালা নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়।

১.১.১. নাট্যচর্চার সার্বিক উৎসাহ, উন্নয়ন, প্রসার ও বিকাশ।
১.১.২. যথাযথভাবে নাট্যচর্চার জন্য ক্ষেত্র প্রস্তুতকরণ।
১.১.৩. মঞ্চায়ন উপযোগী যথার্থ থিয়েটার হল নির্মাণের মাধ্যমে নাট্যকর্মীদের জন্য বস্তুগত সুযোগ সুবিধা নিশ্চিতকরণ।
১.১.৪. বিভিন্ন নাট্যগোষ্ঠী ও নাট্যকর্মীদেরকে নাট্যচর্চায় অধিকতর উৎসাহ প্রদান।
১.১.৫. নাট্যশিল্পকে ক্রমান্বয়ে জীবিকাশ্রয়ী পেশা হিসাবে প্রতিষ্ঠাকরণসহ বাংলাদেশের নাট্য প্রযোজনাসমুহকে আর্ন্তজাতিক মানে উন্নীতকরণ।
১.১.৬. বিশ্ববিদ্যালয়সহ সরকারী-বেসরকারী পর্যায়ের নাট্যকলার ছাত্র-ছাত্রীদের লব্ধ জ্ঞান, অভিজ্ঞতা প্রয়োগের সুযোগ প্রদান।
১.১.৭. দেশের সকল নাট্যকর্মী এবং তাঁদের নাট্যকর্মের জন্য জাতীয় পর্যায়ে নাটক বিষয়ক পারস্পরিক মতামত বিনিময়সহ একটি মিলনকেন্দ্র গড়ে তোলা।
১.১.৮. দেশের নাট্যামোদী এবং নাট্যকর্মীদের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন বাস্তবায়নের মাধ্যমে নাট্যশিল্পের সার্বিক উৎকর্ষসাধন।
১.১.৯. আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত একটি জাতীয় নাট্যশালা নির্মাণের মাধ্যমে নাট্যকর্মীদের দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা পূরণ।

২. নীতিমালা:

২.১. জাতীয় নাট্যশালার মহড়াকক্ষ প্রধানত নাট্যচর্চায় যে সকল সংগঠন দীর্ঘদিন অবদান রেখে আসছে, তাঁদের মঞ্চ নাটকের মহড়ার জন্য ব্যবহৃত হবে।
২.২. মহড়া কক্ষ বলতে শুধুমাত্র জাতীয় নাট্যশালার ৭ম ও ৮ম তলার নির্ধারিত ৪টি মহড়া কক্ষকেই বোঝাবে এবং এতে জাতীয় নাট্যশালার, ষ্টুডিও থিয়েটার, এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হল, মূল থিয়েটার হল কিংবা একাডেমি বা নাট্যশালা প্রাঙ্গণ কিংবা অন্যকোন কক্ষ, স্থান বা মিলনায়তন অর্ন্তভুক্ত হবে না।
২.৩. বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি নাট্যকলা ও চলচ্চিত্র বিষয়ক বিভাগ কর্তৃক মহড়া কক্ষ বরাদ্দের সুপারিশ করা হবে। উক্ত সুপারিশের ভিত্তিতে মহাপরিচালক মহড়াকক্ষ বরাদ্দের চূড়ান্ত অনুমোদন প্রদান করবেন। তবে মহাপরিচালক অপর কোন কর্মকর্তাকে চূড়ান্ত বরাদ্দ প্রদানের ক্ষমতা অর্পণ করতে পারেন।
২.৪ সাধারণত নাট্যশালার মূল থিয়েটার হল, এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হল ও ষ্টুডিও থিয়েটার বরাদ্দপ্রাপ্ত নাট্য সংগঠনসমূহকে হল বরাদ্দের ক্রম অনুসারে মহড়া কক্ষ বরাদ্দের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার প্রদান করা হবে। একটি সংগঠন তাদের নাটক মঞ্চায়নের পূর্বে সর্বোচ্চ ০৩ (তিন) দিন মহড়াকক্ষ বরাদ্দ পাবেন এবং এক্ষেত্রে প্রতিদিন ৩ শিফট (৩ ঘন্টা করে ৯ ঘন্টা) মহড়াকক্ষ বরাদ্দ প্রদান করা যাবে।
২.৫ মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পরিপন্থী, ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাত সম্বলিত এবং অপসংস্কৃতিদুষ্ট কোন নাটক এই কক্ষে মহড়া করার জন্য বিবেচিত হবেনা।
২.৬ নিম্নমানের বিনোদনমূলক নাটক কিংবা কুরুচি সম্পন্ন কোন অনুষ্ঠানের মহড়ার জন্য মহড়াকক্ষ বরাদ্দ প্রদান করা হবেনা।
২.৭ নতুন নাটক মঞ্চায়নের মহড়ার জন্য সর্বোচ্চ ৭ দিন (সকাল, বিকাল ও সন্ধ্যা মিলিয়ে মোট ২১ শিফট) বরাদ্দ দেওয়া যাবে।
২.৮ মহড়াকক্ষ ভাড়া গ্রহণকারী সংগঠন সকালের পালার মহড়ার জন্য সকাল ১০টা থেকে বেলা ১.০০টা, বিকাল ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৬.০০টা এবং সন্ধ্যার পালায় মহড়ার জন্য সন্ধ্যা ৬.৩০টা থেকে রাত ৯.৩০টা পর্যন্ত মহড়াকক্ষ ব্যবহার করতে পারবে। তবে জরুরী প্রয়োজনে বিশেষ ক্ষেত্রে রাতের পালার সময়সীমা সর্বোচ্চ আরো ৩০ মিনিট বর্ধিত করা যেতে পারে।
২.৯ মহড়াকক্ষ বরাদ্দের আবেদন মঞ্জুর করা বা না করা এবং কোন কারণ দর্শানো ছাড়া যে কোন সময়, প্রদত্ত অনুমতি বাতিল করার সম্পূর্ণ অধিকার শিল্পকলা একাডেমি সংরক্ষণ করবে।
২.১০.মহড়াকক্ষের জন্য মূল থিয়েটার ষ্টুডিও থিয়েটার ও এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলের অনুষ্ঠানের সাথে সমন্বয় করে শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা চালু করা হবে।
২.১১. একাডেমি নিয়ন্ত্রণ বহির্ভূত কারণে বিদ্যুৎ বিভ্রাট, শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা বা আলোক ও শব্দ ব্যবস্থার কোন সমস্যা দেখা দিলে একাডেমি কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না।
২.১২. মহড়াকক্ষ বরাদ্দপ্রাপ্ত সংগঠন, তাঁদের নাট্য প্রযোজনা বা প্রতিষ্ঠানের সেট ও প্রপ্স ইত্যাদি পূর্বের দিন রাত্রে মহড়া কক্ষে প্রবেশ ও সেটিং করতে পারবেনা। বরাদ্দ প্রাপ্ত তারিখ ও শিফ্টের বরাদ্দ প্রাপ্ত পালার নির্ধারিত সময়ে সেটিং করতে হবে।
২.১৩. মহড়া শেষ হবার সাথে সাথে মহড়ার প্রয়োজনে সঙ্গে আনা সকল প্রকার দ্রব্যসামগ্রী অতি দ্রুত মহড়াকক্ষ থেকে অপসারণ করতে হবে। ব্যবহারকৃত সংগঠন কর্তৃক সঙ্গে আনা কোন দ্রব্যাদি কোন অবস্থায় মহড়াকক্ষে কিংবা জাতীয় নাট্যশালার কোন স্থানে সংরক্ষণ করা যাবেনা।
২.১৪. মহড়াকক্ষ ব্যবহারকারী সংগঠন, আহারের জন্য নির্দিষ্ট স্থান ব্যতীত একাডেমি অন্য কোন স্থান ব্যবহার করতে পারবেনা। জাতীয় নাট্যশালা ভবনে মাদকদ্রব্য সেবন এবং মদ্যপান করা নিষিদ্ধ।
২.১৫. মহড়াকক্ষ ব্যবহারকারী সংগঠন কর্তৃক মহড়াকৃত নাটক বা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান যদি অসামাজিক, অশালীন কিংবা আপত্তিকর বা উত্তেজনাকর বলে একাডেমি নিকট বিবেচিত হয়, তাহলে একাডেমি কর্তৃপক্ষ যে কোন সময় তাৎক্ষণিকভাবে মহড়া বন্ধসহ মহড়াকক্ষ ব্যবহারের অনুমতি বাতিল করতে পারবে এবং এরূপ ক্ষেত্রে প্রয়োজনে মহড়াকক্ষ ব্যবহারকারী সংগঠনের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাবে এবং ভবিষ্যতে উক্ত সংগঠন এই মহড়াকক্ষ ব্যবহারের অযোগ্য বলে বিবেচিত হবে।
২.১৬. মহড়াকক্ষ ব্যবহারকারী সংগঠন কর্তৃক মহড়াকক্ষ ব্যবহারকালে মহড়াকক্ষ, জাতীয় নাট্যশালা বা একাডেমি কোন কিছু বা কোন অংশের ক্ষতিসাধিত হলে, ভাড়াগ্রহীতা সংগঠন একাডেমি কর্তৃক নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে সে ক্ষতি পূরণ করতে বাধ্য থাকবে। অন্যথায় সংশ্লিষ্ট সংগঠনের বিরুদ্ধে একাডেমি কর্তৃপক্ষ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারবে।
২.১৭. মহড়াকক্ষ ব্যবহারের ক্ষেত্রে কোন সংগঠন কর্তৃক অশোভন বা অসহিষ্ণু মনোভাবের প্রকাশ ঘটালে পরবর্তিকালে উক্ত সংগঠনের অনুকূলে মহড়াকক্ষ বরাদ্দ প্রদান করা হবে না।
২.১৮. মহড়াকক্ষ বরাদ্দ নিয়ে কোন অবস্থাতেই সেখানে নিয়মিত কোন প্রকার স্কুল পরিচালনা করা যাবেনা। তবে বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে অনুমতি সাপেক্ষে এক সপ্তাহের জন্য বিশেষ কোর্স/ কর্মশালা করা যেতে পারে। ২.১৯. প্রয়োজনবোধে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি পরিষদ মহড়াকক্ষ ব্যবহার নীতিমালা সংশোধন, সংযোজন বা পরিমার্জন করতে পারবে।

৩. মহড়াকক্ষের ভাড়ার হার:

৩.১ মহড়াকক্ষে নিয়মিত নাটক মঞ্চায়নকারী সংগঠনকে মহড়ার জন্য সকাল ও বিকালের শিফটের একক ভাড়া বাবদ ৩০০/- (তিনশত) টাকা, সন্ধ্যার শিফ্টের ভাড়া ৪০০/- টাকা প্রদান করতে হবে এবং খালি থাকা সাপেক্ষে অন্যান্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মহড়ার ক্ষেত্রে সংশ্লি¬ষ্ট সংগঠনকে ভাড়া প্রদান করা যাবে। ভাড়া গ্রহণকারী সংগঠনকে এর অতিরিক্ত হিসাবে প্রযোজ্য হারে ভ্যাট প্রদান করতে হবে। তবে ধারাবাহিকভাবে সকাল ও বিকালের দুই শিফ্ট একত্রে ভাড়া দিলে ৫০০/- টাকা বিকাল ও সন্ধ্যা শিফট ৬০০/- টাকা প্রদান করতে হবে।
৩.২ বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি কাজের সাথে সংশ্লিষ্ট নয় এমন সংগঠনের ক্ষেত্রে ভাড়া প্রতি শিফ্ট ২,০০০/- (দুই হাজার) টাকা প্রদান করতে হবে।
৩.৩ মহড়াকক্ষ ব্যবহারের ক্ষেত্রে নিয়মিত নাটক মঞ্চায়নকারী সংগঠনকে অতিরিক্ত জামানত বাবদ ১০০০/- (এক হাজার) টাকা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মহড়াকারী অন্যান্য সংগঠনকে ২,০০০/- (দুই হাজার) টাকা বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি অনুকুলে জমা দিতে হবে।
৩.৪ নিয়মিতভাবে মহড়াকক্ষ ব্যবহারকারী সংগঠনকে জামানতের নির্ধারিত টাকা একবার প্রদান করলেই চলবে। তবে জামানতের অর্থ সংশ্লি¬ষ্ট সংগঠন কর্তৃক ফেরত নেওয়া হলে উক্ত সংগঠনকে পুনরায় মহড়াকক্ষ বরাদ্দ নেয়ার সময় জামানতের অর্থ জমা দিতে হবে।
৩.৫ জাতীয়ভাবে গুরুত্বপূর্ণ এমন বিশেষ ক্ষেত্রে একাডেমি মহাপরিচালক রেয়াতি হারে ভাড়া প্রদান করে মহড়াকক্ষ ব্যবহারের অনুমতি দিতে পারবেন।
৩.৬ বিদেশী দূতাবাসের আগ্রহ বা সংশ্লিষ্টতার ক্ষেত্রে বিবেচনায় কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিতে পারবে।

৪. আবেদনের নিয়মাবলী:

৪.১ মহড়াকক্ষ ব্যবহারে আগ্রহী নাট্যগোষ্ঠী বা সাংস্কৃতিক সংগঠনকে নির্ধারিত সময়কালের মধ্যে মহড়া কক্ষ ব্যবহারের অনুমতির জন্য নির্ধারিত আবেদন পত্রে, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি মহাপরিচালকের বরাবরে আবেদন করতে হবে।
৪.২ সংগঠন কর্তৃক নির্ধারিত ফরমে মহড়াকক্ষ বরাদ্দের আবেদনের প্রেক্ষিতে মহাপরিচালকের অনুমোদনক্রমে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি নাট্যকলা ও চলচ্চিত্র বিষয়ক বিভাগ মহড়া কক্ষ ব্যবহারের প্রাথমিক বরাদ্দ পত্র প্রদান করবে।
৪.৩ সংগঠন কর্তৃক নির্ধারিত ফরমে মহড়াকক্ষ বরাদ্দের আবেদনের প্রেক্ষিতে, মহাপরিচালকের সম্মতি গ্রহণপূর্বক বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি নাট্যকলা ও চলচ্চিত্র বিষয়ক বিভাগ মহড়াকক্ষ ব্যবহারের প্রাথমিক বরাদ্দ পত্র প্রদান করবে।
৪.৪ প্রাথামিক বরাদ্দপত্র প্রাপ্তির সাত দিনের মধ্যে আবেদনকারী সংগঠনকে অফিস চলাকালীন সময়ে মহড়াকক্ষ ভাড়া বাবদ নির্ধারিত অর্থ, প্রযোজ্য ভ্যাট এবং জামানত বাবদ দেয় অর্থ বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি অনুকূলে পৃথক পৃথক পে- অর্ডারের মাধ্যমে অথবা নগদ অর্থে একাডেমি হিসাব বিভাগে জমা দিতে হবে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নির্ধারিত অর্থ জমা দিতে ব্যর্থ হলে, মহড়াকক্ষ প্রাথমিক বরাদ্দপ্রাপ্ত সংগঠনের অনুকূলে সংরক্ষণের নিশ্চয়তা থাকবেনা।
৪.৫ চারটি মহড়া কক্ষ ছাড়া অন্য কোন কক্ষকে মহড়াকক্ষ হিসাবে ব্যবহার করতে কর্তৃপক্ষের পূর্বানুমতি নিতে হবে এবং মহড়াকক্ষের জন্য নির্ধারিত হারে ভাড়া দিতে হবে। অনুমতি ছাড়া কোন কক্ষই অন্য কোন কাজে ব্যবহার করা যাবে না।
৪.৬ নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ভ্যাটসহ মহড়াকক্ষের ভাড়া ও প্রযোজ্য ক্ষেত্রে জামানতের অর্থ প্রাপ্তির পর একাডেমি নাট্যকলা ও চলচ্চিত্র বিষয়ক বিভাগ থেকে সংশি¬ষ্ট সংগঠনকে মহড়াকক্ষ ব্যবহারের জন্য চূড়ান্ত অনুমতি পত্র প্রদান করা হবে।
৪.৭ চূড়ান্ত অনুমতি পত্র না পাওয়া পর্যন্ত আবেদনকারী সংগঠন মহড়াকক্ষ ব্যবহার করতে পারবে না।
৪.৮ ভাড়া গ্রহণকারী সংগঠন মহড়াকক্ষ বরাদ্দের নির্ধারিত তারিখের কমপক্ষে ৩ (তিন) দিন পূর্বে বরাদ্দের তারিখ পরিবর্তনের আবেদন জানালে মহড়াকক্ষ খালি থাকা সাপেক্ষে তারিখ পরিবর্তন করা যেতে পারে।
৪.৯ চূড়ান্ত অনুমতিপত্র পাবার পর কোন কারণে মহড়াকক্ষ ভাড়া গ্রহীতা, বরাদ্দের নির্ধারিত তারিখের তিনদিন পূর্বে বরাদ্দ বাতিল করার আবেদন জানালে ভাড়ার ১০%, দুই দিন পূর্বে আবেদন জানালে ভাড়ার ২৫% ও এক দিন পূর্বে জানালে ৫০% অর্থ কর্তন এবং মহড়াকক্ষ বরাদ্দের নির্ধারিত তারিখে জানালে জমা দেয়া অর্থের সম্পূর্ণই বাজেয়াপ্ত হবে।
৪.১০ এক সংগঠনের নামে বরাদ্দকৃত মহড়াকক্ষ অন্য সংগঠন ব্যবহার করতে পারবে না।
৪.১১ মহড়া কক্ষ ভাড়া গ্রহণকারীর এখতিয়ার বহিরকুত কোন দৈব-দুর্বিপাক, রাজনৈতিক বা সামাজিক অচলাবস্থা ইত্যাদি কারণে নির্ধারিত দিন ও সময়ে মহড়া পরিচালনা করা সম্ভবপর না হলে ভাড়া গ্রহীতা সংগঠনকে তার প্রদত্ত ভাড়া ফেরত প্রদান অথবা ভাড়াগ্রহীতার আবেদন অনুযায়ী মহড়াকক্ষ খালি থাকা সাপেক্ষে অন্য কোন দিন বরাদ্দ প্রদান করা যেতে পারে।
৪.১২ মহড়াকক্ষ ভাড়াগ্রহণকারী কর্তৃক মহড়াকক্ষ বা একাডেমি কোন অংশের তথা কোন কিছুর ক্ষতিসাধিত না হলে ভাড়া গ্রহণকারী কর্তৃক জামানতের অর্থ ফেরত প্রদানের আবেদনের ৩ (তিন) কার্যদিবসের মধ্যে জামানতের অর্থ ফেরত দেওয়া হবে।
৪.১৩ মহড়াকক্ষ বরাদ্দ গ্রহণকারী সংগঠনের নিজস্ব সেট, প্রপস ও কস্টিউম ভিন্ন বিশেষ প্রয়োজনে অন্যকোন দ্রব্যসামগ্রী মহড়াকক্ষ এর অভ্যন্তরে নিতে চাইলে শিল্পকলা একাডেমি নাট্যকলা ও চলচ্চিত্র বিষয়ক বিভাগের অনুমতি গ্রহণ করতে হবে এবং মহড়া শেষে ঐসব জিনিষ জাতীয় নাট্যশালার বাইরে নেবার সময় কর্তৃপক্ষ কর্তৃক দেয় গেট পাশের প্রয়োজন হবে।
৪.১৪ এই নীতিমালা প্রাথমিক বরাদ্দ প্রাপ্তির আবেদনের দিন থেকে কার্যকর হবে।

৫. এই নীতিমালায় বিধৃত হয়নি, অথচ তা প্রয়োজনীয়, এমন কিছু পরে উদ্ঘাটিত হলে, তা এই নীতিমালায় একাডেমি পরিষদের অনুমোদনক্রমে সংযোজন করা যাবে।
৬. একাডেমি অথবা রাষ্ট্রীয় প্রয়োজনে যে কোন সময় বরাদ্দ বাতিল করার ক্ষমতা একাডেমি কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণ করে। সে ক্ষেত্রে আয়োজক প্রতিষ্ঠান জমাকৃত সকল অর্থ ফেরৎ পাবেন।

হল বুকিং

প্রার্থীত তারিখঃ

কক্ষ ব্যবহারের তারিখঃ
[ সংশ্লিষ্ট ঘরে টিক চিহ্ন দিতে হবে]